1. billalhossain@cumillardak.com : দৈনিক কুমিল্লার ডাক : দৈনিক কুমিল্লার ডাক
  2. : admin :
  3. Editor@gmail.com : Comillar Dak : Comillar Dak
  4. Noman@cumillardak.com : Noman :
চেয়ারম্যান ইকবালের বিরুদ্ধে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার জিডি - দৈনিক কুমিল্লার ডাক
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৪:০৪ অপরাহ্ন
Title :
তিতাসে জাগ্রত একতা সংঘের সভাপতি শফিকুল ইসলামকে সংবর্ধনা দেবীদ্বারে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ডাকাত দলের ১ সদস্য গ্রেফতার চান্দিনায় শ্রমিক অবরোধ : পারিশ্রমিকের দাবিতে মহাসড়ক স্তব্ধ কুমিল্লায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ৫২ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি গ্রেফতার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে শ্রমিক আন্দোলনে যানজট চৌদ্দগ্রামে গাঁজা-ইয়াবা উদ্ধার, কথিত সাংবাদিকসহ আটক ১৩ চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় কাভার্ডভ্যান চালক নিহত ঈদে পরিবার ছেড়ে রাস্তায় : হাইওয়ে পুলিশের অক্লান্ত সেবায় সুরক্ষিত যাত্রা “কলেজের করিডোরে হৃদয়ের হাসি : বৃষ্টি ও সাহিত্যের মিলন” পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই চক্রের মূল হোতা গ্রেফতার

চেয়ারম্যান ইকবালের বিরুদ্ধে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার জিডি

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০২২
  • ৩১৯১ Time View

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মোঃ ওয়াসিম। সরেজমিন পরিদর্শনকালে ইউনিয়নের সাইকচাইল এলাকায় রাস্তা তৈরিতে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহারে মিস্ত্রীকে নিষেধ করায় করায় এ কর্মকর্তাকে দুর্ব্যবহারসহ ঐ এলাকায় ভবিষ্যতে না যাওয়ার হুমকি দেন চেয়ারম্যান। এ ঘটনায় জিডি করেন পিআইও।
জিডি ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইতিপূর্বে নিষেধ করার পরও রাস্তা নির্মানে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছিল। গত ৮ জুন পিআইও মোঃ ওয়াসিম এবং উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ ‘সাইকচাইল দক্ষিণ পাড়া রাস্তা থেকে লোকমানের বাড়ি পর্যন্ত ৫০০ মিটার এইচবিবি করন’ প্রকল্প পরিদর্শনে যান। এ সময় রাস্তায় নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের বিষয়ে মিস্ত্রীকে জিজ্ঞেস করলে মিস্ত্রী কোন সদুত্তর দিতে পারেনি। তখন সিডিউল অনুযায়ী গুনগত মানসম্পন্ন মালামাল ব্যবহারের নির্দেশ দেন পিআইও। কিছুক্ষণ পর ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ ঘটনাস্থলে গিয়ে কর্মকর্তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন এবং ভবিষ্যতে ঐ ইউনিয়নে না যাওয়ার হুমকি দেন। আর গেলে অপ্রীতিকর ঘটনারও হুমকি-ধমকি দেন। খারাপ আচরণের কারণ জানতে চাইলে চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে দুই কর্মকর্তাকে মারধর করার জন্য এগিয়ে আসে। অবস্থা বেগতিক দেখে কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।
এ ব্যাপারে বিপুলাসার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ জানান, এটা ভুল বোঝাবুঝি ছিল। কর্মকর্তাদেরকে চিনতে না পারায় সাইডের লোকজনের সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। পরে উপজেলা নেতৃবৃন্দের মধ্যস্থতায় ঘটনাটি মিমাংসা হয়েছে।
এ বিষয়ে মনোহরগঞ্জ থানার ওসি শফিউল ইসলাম জানান, নাথেরপেটুয়া তদন্ত কেন্দ্রের আইসি জিডি’টি তদন্ত করছেন।
নাথেরপেটুয়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ জাফর ইকবাল জানান, ঘটনাটি মিমাংসার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দায়িত্ব নিয়েছেন।
কুমিল্লার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার ( লাকসাম, মনোহরগঞ্জ সার্কেল) মোঃ মুহিতুল ইসলাম জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ঘটনাটি মিমাংসা করেছেন। এটি ভুল বোঝাবুঝি ছিল।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © comillardak.com