1. billalhossain@cumillardak.com : দৈনিক কুমিল্লার ডাক : দৈনিক কুমিল্লার ডাক
  2. : admin :
  3. Editor@gmail.com : Comillar Dak : Comillar Dak
  4. Noman@cumillardak.com : Noman :
বিভিন্ন কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি সাংবাদিক! - দৈনিক কুমিল্লার ডাক
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন
Title :
তিতাসে জাগ্রত একতা সংঘের সভাপতি শফিকুল ইসলামকে সংবর্ধনা দেবীদ্বারে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ডাকাত দলের ১ সদস্য গ্রেফতার চান্দিনায় শ্রমিক অবরোধ : পারিশ্রমিকের দাবিতে মহাসড়ক স্তব্ধ কুমিল্লায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ৫২ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি গ্রেফতার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে শ্রমিক আন্দোলনে যানজট চৌদ্দগ্রামে গাঁজা-ইয়াবা উদ্ধার, কথিত সাংবাদিকসহ আটক ১৩ চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় কাভার্ডভ্যান চালক নিহত ঈদে পরিবার ছেড়ে রাস্তায় : হাইওয়ে পুলিশের অক্লান্ত সেবায় সুরক্ষিত যাত্রা “কলেজের করিডোরে হৃদয়ের হাসি : বৃষ্টি ও সাহিত্যের মিলন” পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই চক্রের মূল হোতা গ্রেফতার

বিভিন্ন কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি সাংবাদিক!

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • Update Time : শুক্রবার, ৩১ মে, ২০২৪
  • ৩০৫৩ Time View

সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা হলেও সম্প্রতি এর আড়ালে অপরাধমূলক কার্যক্রমের ঘটনা বেড়ে চলেছে। দৈনিক স্বাধীন সময় নামের একটি কথিত পত্রিকা এই অপসাংবাদিকতার নতুন উদাহরণ হয়ে উঠেছে। এই পত্রিকার নাম ব্যবহার করে অপরাধ চালানোর ঘটনা সামনে এসেছে, যা সমাজে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা বাড়িয়ে তুলেছে।

সম্প্রতি একটি ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত ভিডিওতে লোকমান নামের এক ব্যক্তি দৈনিক স্বাধীন সময় পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে নিজের পরিচয় দিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। একই সাথে রাকিব (ছদ্মনাম) নামের আরেক ব্যক্তি ফেসবুকে একই পত্রিকায় নিয়োগ পাওয়ার দাবি করেন। তবে তাঁর দাবি অনুযায়ী, তিনি এই আইডি কার্ড পেয়েছেন ‘হুজাইফা টয়লেট্রিজ অ্যান্ড কসমেটিকস’ নামের একটি প্রতিষ্ঠানের ডিলারশিপ নেওয়ার বিনিময়ে।

অনুসন্ধানী দল যখন পুরানা পল্টনের এইচ এম সিদ্দিক ম্যানশনে পৌঁছায়, তারা দেখতে পায় যে স্বাধীন সময়ের কার্যালয় আসলে চা-পাতা প্যাক করার একটি কেন্দ্র। ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মো. এনামুল হক দাবি করেন যে তাঁর পত্রিকা সরকারি অনুমোদনপ্রাপ্ত, কিন্তু সরকারের চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের নিবন্ধন তালিকায় এর নাম নেই।

এই ঘটনা সাংবাদিক সমাজের সুনাম ক্ষুণ্ন করছে এবং সাংবাদিকতার মান নষ্ট করছে। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্মুদ এবং জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন উভয়েই এই বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এবং সাংবাদিকদের নিবন্ধনের আওতায় আনার প্রস্তাব করেছেন।

এই ঘটনা সমাজের জন্য একটি সতর্কবার্তা হিসেবে কাজ করে যে সাংবাদিকতা পরিচয়ের আড়ালে অপরাধ কার্যক্রম চালানো যে কোনো মুহূর্তে ধরা পড়তে পারে এবং এর ফলে সমাজের সুনাম ও সাংবাদিকতার মান ক্ষুণ্ন হতে পারে।

বিক্রয় প্রতিনিধি থেকে সাংবাদিক হওয়ার প্রবণতা আমাদের সমাজে একটি উদ্বেগজনক বিষয়। এই ধরনের অপসাংবাদিকতা শুধু যে সাংবাদিকতার মান নষ্ট করে, তা নয়, এটি সমাজের জন্যও বিপজ্জনক। সাংবাদিকতা একটি গুরুত্বপূর্ণ পেশা যা সত্য ও ন্যায়ের প্রতি নিবেদিত। কিন্তু যখন বিক্রয় প্রতিনিধিরা বা অন্য কোনো পেশার মানুষ সাংবাদিকতার পরিচয় ব্যবহার করে অপরাধ কার্যক্রমে জড়িত হয়, তখন তা সমাজের জন্য একটি বড় ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়ায়।

এই ধরনের অপসাংবাদিকতা প্রতিরোধের জন্য সমাজের সচেতনতা এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কঠোর নজরদারি অত্যন্ত জরুরি। সাংবাদিকতা পেশার মর্যাদা রক্ষা এবং সমাজের সুনাম বজায় রাখতে হলে এই ধরনের অপসাংবাদিকতা বন্ধ করা অপরিহার্য।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © comillardak.com