1. billalhossain@cumillardak.com : দৈনিক কুমিল্লার ডাক : দৈনিক কুমিল্লার ডাক
  2. : admin :
  3. Editor@gmail.com : Comillar Dak : Comillar Dak
  4. Noman@cumillardak.com : Noman :
হোমনায় জহির হত্যা মামলা : প্রধান আসামী জেলা পরিষদ সদস্যসহ গ্রেফতার-২ - দৈনিক কুমিল্লার ডাক
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১০:১০ পূর্বাহ্ন
Title :
“কুমিল্লার হোমনায় ব্যবসায়ী হত্যা : আদালতের ঐতিহাসিক রায়ে ৭ জনের মৃত্যুদ- ও ৭ জনের যাবজ্জীবন” চৌদ্দগ্রামে বিদেশ প্রত্যাগত অভিবাসীদের পুনঃএকত্রীকরণে সেমিনার চৌদ্দগ্রামে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক ও রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ঈদের আগে জাল টাকার ছড়াছড়ি : ক্রেতা-বিক্রেতারা আতঙ্কে চৌদ্দগ্রামে বজ্রপাতে মাটিকাটার শ্রমিক নিহত হারানো পরিবারের সন্ধানে মোহাম্মদ ইয়াসিন: এক দশক পরেও মা’কে খুঁজছেন চৌদ্দগ্রামে ৬০ কেজি গাঁজা সহ কাভার্ডভ্যান জব্দ দেবীদ্বারে কিশোরী ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেপ্তার দেবীদ্বার উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত “আনারসের জোয়ারে উত্তাল কুমিল্লা সদর দক্ষিণ : ইঞ্জিনিয়ার রিপনের বিজয়ের প্রত্যয়ে মুখরিত জনতা”

হোমনায় জহির হত্যা মামলা : প্রধান আসামী জেলা পরিষদ সদস্যসহ গ্রেফতার-২

হোমনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :
  • Update Time : বুধবার, ২৪ মে, ২০২৩
  • ৩১৫৫ Time View

কুমিল্লার হোমনার আলোচিত “পাঠান বাহিনী”র প্রধান মুকবল হোসেন পাঠানের নেতৃত্বে যুবলীগ নেতা জহির হত্যার পর এবার ওই মামলার সাক্ষী ও নিহতের ভাই মো. খায়েরকে প্রকাশ্যে হাতুড়ি পেটা ও ছুরিকাঘাতে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই ঘটনায় পাঠান বাহিনী প্রধান কুমিল্লা জেলা পরিষদ সদস্য মুকবল পাঠানকে প্রধান আসামী করে ১২জনের নাম উল্লেখ্যসহ অজ্ঞাত আরো ৫/৬জনকে আসামী করে গত ২৩ মে রাতে হোমনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার পর অভিযুক্ত জেলা পরিষদ সদস্য মুকবল হোসেন পাঠান ও আব্দুল হক উরফে হক সাব নামে ২জনকে আটক করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে হোমনা থানার ও.সি সাইফুল ইসলাম নিশ্চিত করেন।

মামলা ও থানা সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় আধিপত্য ও রাজনৈতিক পূর্ব শত্রুতার জেরে দীর্ঘ দিন ধরেই “পাঠান বাহিনী”র লোকজন এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিলো। এরই জেরে গেলো বছরের ১৭ই ফেব্রুয়ারী আসাদপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মো. সালাউদ্দিন জহিরকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহত জহিরের বোন পারুল আক্তার বাদী হয়ে ওই মামলায় বর্তমান জেলা পরিষদ সদস্য মুকবল হোসেন পাঠানকে অন্যতম আসামী করা হয়। বর্তমানে বিজ্ঞ আদালতে ওই মামলাসহ প্রায় ১৬-১৭টি মামলা তার বিরুদ্ধে চলমান রয়েছে জানা যায়। জহির হত্যাসহ কয়েকটি মামলা প্রত্যাহারের জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই গত ২৩মে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে আসাদপুর ইউনিয়নের ঘনিয়ারচর বাজারে নিহত জহিরের পিতা রেনু মিয়ার চায়ের দোকানে হামলা চালায় পাঠান বাহিনী।

এসময় নিহত জহিরের ভাই খায়েরকে হামলা করে সুইচ গিয়ার দিয়ে মারে ও হাতুড়ি পেটা করে হত্যা চেষ্টা করে। এসময় অটোরিক্সায় বসে থাকা মো. কামাল নামের এক ব্যক্তি তাকে বাঁচাতে গেলে “পাঠান বাহিনী”র লোকজন তাকেও এলোপাতাড়ি হামলা করে এবং হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে কামাল হোসেনের মুখের ৪টি দাঁত ভেঙে ফেলে। উভয়কে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হোমনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করিয়ে চিকিৎসা দেন।

এই ঘটনায় নিহত জহিরের পিতা রেনু মিয়া বাদী হয়ে মো. মুকবল হোসেন পাঠানকে প্রধান আসামী করে ১২জনের নাম উল্লেখ্যসহ আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে হোমনা থানায় একটি মামলা রুজু হয়।
মামলার বাদী রেনু মিয়া জানান, মুকবল পাঠানের নেতৃত্বে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার বাহিনীর লোকজন বোমা-ককটেল ফাটিয়ে এবং দেশিয় অস্ত্র নিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে আমার দোকানে হামলা চালায় ও লুটপাট করে। আমার এক ছেলে জহিরকে হত্যা করে এখন আবার আমার ছেলে খায়েরকেও হত্যা করতে চায়। জহির হত্যা মামলা না তুললে যেকোন সময় আমাকে বা আমার পরিবারের লোকজনকে খুন করে ফেলবে প্রকাশ্যে বলে বেড়ায়। মুকবল পাঠানের বিরুদ্ধে নারী পাচার ও হত্যাসহ ১৬-১৭টি মামলা রয়েছে।

হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম জানান, বাদীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় মামলা এফআইআর করা হয়েছে। মুকবল পাঠান ও হক সাব নামে ২জনকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামীদেরও গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। মুকবল পাঠানের বিরুদ্ধে হত্যা, নারী নির্যাতন ও নারীপাচারসহ ১১টিরও বেশি মামলা আদালতে বিচারাধীর রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © comillardak.com