1. billalhossain@cumillardak.com : দৈনিক কুমিল্লার ডাক : দৈনিক কুমিল্লার ডাক
  2. : admin :
  3. Editor@gmail.com : Comillar Dak : Comillar Dak
  4. Noman@cumillardak.com : Noman :
বুশরা আফরিন : ঢাকা উত্তরের সবুজ প্রহরী - দৈনিক কুমিল্লার ডাক
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
Title :
“কুমিল্লার হোমনায় ব্যবসায়ী হত্যা : আদালতের ঐতিহাসিক রায়ে ৭ জনের মৃত্যুদ- ও ৭ জনের যাবজ্জীবন” চৌদ্দগ্রামে বিদেশ প্রত্যাগত অভিবাসীদের পুনঃএকত্রীকরণে সেমিনার চৌদ্দগ্রামে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক ও রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ঈদের আগে জাল টাকার ছড়াছড়ি : ক্রেতা-বিক্রেতারা আতঙ্কে চৌদ্দগ্রামে বজ্রপাতে মাটিকাটার শ্রমিক নিহত হারানো পরিবারের সন্ধানে মোহাম্মদ ইয়াসিন: এক দশক পরেও মা’কে খুঁজছেন চৌদ্দগ্রামে ৬০ কেজি গাঁজা সহ কাভার্ডভ্যান জব্দ দেবীদ্বারে কিশোরী ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেপ্তার দেবীদ্বার উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত “আনারসের জোয়ারে উত্তাল কুমিল্লা সদর দক্ষিণ : ইঞ্জিনিয়ার রিপনের বিজয়ের প্রত্যয়ে মুখরিত জনতা”

বুশরা আফরিন : ঢাকা উত্তরের সবুজ প্রহরী

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী :
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৩০২৬ Time View

ঢাকা উত্তর সিটির হিট অফিসার বুশরা আফরিনের নাম সম্প্রতি অনেক আলোচনায় এসেছে। তার ইন্টারভিউ নিয়ে নানা ধরনের ট্রল ও সমালোচনা দেখা গেছে, কিন্তু এর পেছনের কারণ কী? আমি একটু খোঁজ নিয়ে দেখলাম যে তিনি নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে নগরবাসীর জন্য কী কী করেছেন।

বুশরা আফরিন ঢাকা উত্তর সিটির ১৫টি বস্তি এলাকায় গত ১ বছরে পাঁচ হাজারের বেশি বৃক্ষরোপন করেছেন। এই গাছগুলো পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বস্তিবাসীদের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এছাড়া, জনবহুল এবং জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে দাবদাহের তীব্রতা থেকে স্বস্তি দিতে অস্থায়ী কুলিং মিশিন স্থাপন করেছেন, যা পর্যায়ক্রমে শিফট করে পানি ছিটাচ্ছে।

তার উদ্যোগে বেশ কিছু বস্তি এলাকায় ‘হিট অ্যাওয়ারনেস ক্যাম্পেইন’ চালু করা হয়েছে, যেখানে বস্তিবাসীদের অতিরিক্ত দাবদাহে নিজে এবং পরিবারকে সুরক্ষিত রাখার উপায় শেখানো হচ্ছে। এছাড়া, নগরে দুইটি সবুজ বনায়নের পরিকল্পনা চুড়ান্ত করেছেন, একটি কল্যাণপুরে এবং আরেকটি বনানীতে, যা শীতলীকরণ, বায়ুদূষণ রোধ এবং মাটির গুণাগুণ বৃদ্ধি করবে।

তার এই সকল উদ্যোগ সত্ত্বেও, কেন তাকে নিয়ে এত উন্মাদনা এবং ট্রল করা হচ্ছে, তা বোঝা মুশকিল। ইন্টারভিউতে তার অতিরিক্ত ইংরেজি বলা নিয়ে সমালোচনা হলেও, তিনি বিদেশে পড়ালেখা করেছেন এবং সেখানে ইংরেজি বলতে হয়েছে। তার পরামর্শগুলো, যেমন বাসা থেকে বের হতে চাইলে ওয়াটরপট, টুপি, এবং মিনি পকেট ফ্যান নেওয়া, এগুলো অহেতুক নয়।

ঢাকা উত্তর সিটির মানুষজন অনেক ভালোভাবে বসবাস করছে, প্রচুর গাছপালা এবং পর্যপ্ত ফাঁকাস্থান থাকার কারণে। বুশরা আফরিনের উদ্যোগে গাছ কাটা ঠেকানো এবং নগরীর সৌন্দর্য বাড়ানোর কাজ চলছে। তাই, কাজের গঠনমূলক আলোচনা-সমালোচনা করা উচিত, কিন্তু একটা নারীকে নিয়ে অহেতুক ট্রল বা সেক্সুয়াল এবিউজিং করা কোনভাবেই কাম্য নয়।

 

বুশরা আফরিনের কাজ এবং তার উদ্যোগ ঢাকা উত্তর সিটির জন্য এক অনন্য সম্পদ। তার প্রচেষ্টা এবং সবুজ উদ্যোগ নগরের মানুষের জীবনমান উন্নত করেছে এবং পরিবেশের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। তার কাজের মূল্যায়ন করা উচিত তার অর্জনের ভিত্তিতে, না যে তিনি কীভাবে কথা বলেন বা তার অতীতের ছবি কেমন। সমাজের উন্নতির জন্য তার মতো ব্যক্তিদের সমর্থন করা এবং তাদের কাজের স্বীকৃতি দেওয়া জরুরি।

আমাদের সমাজে একজন নারীর প্রতি অহেতুক ট্রল বা সেক্সুয়াল এবিউজিং করা একটি গভীর সামাজিক সমস্যা যা আমাদের সবার সচেতন হওয়া এবং প্রতিহত করা উচিত। বুশরা আফরিনের মতো কর্মীরা যখন তাদের কাজের মাধ্যমে সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার চেষ্টা করেন, তখন তাদের প্রতি সম্মান এবং সমর্থন প্রদর্শন করা আমাদের সবার দায়িত্ব। তাই, আসুন আমরা সবাই মিলে একটি সবুজ, স্বাস্থ্যকর এবং সমৃদ্ধ ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে কাজ করি।

বাংলাদেশের বাইরে বিশ্বের অন্যান্য দেশেও হিট অফিসার পদ রয়েছে। এই পদের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলো হলো যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামি, লস অ্যাঞ্জেলেস, চিলির সান্টিয়াগো, সিয়েরা লিওন, গ্রিসের এথেন্স, এবং অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন। এই পদের সম্মানি সম্পর্কে সরাসরি তথ্য পাওয়া যায়নি, তবে এই পদের মূল কাজ হলো জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা করা এবং তাপমাত্রা বৃদ্ধির প্রতিক্রিয়া পরিকল্পনা তৈরি করা।

বুশরা আফরিনের নিয়োগ নিয়ে যারা ট্রল করে তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, একজন হিট অফিসার হিসেবে তার কাজের গুরুত্ব এবং তার অবদান অপরিসীম। তার নিয়োগের পর থেকে তিনি ঢাকা উত্তর সিটির জন্য অনেক উদ্যোগ নিয়েছেন, যেমন বৃক্ষরোপন, হিট অ্যাওয়ারনেস ক্যাম্পেইন চালু করা, এবং সবুজ বনায়নের পরিকল্পনা করা। এই সকল কাজ নগরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখা এবং পরিবেশের উন্নতি সাধনে অবদান রাখছে।

তাই, তার নিয়োগ নিয়ে ট্রল করা বা অহেতুক সমালোচনা করা অন্যায়। একজন ব্যক্তির পেশাদার অবদানকে তার ব্যক্তিগত জীবন বা অতীতের ছবির ভিত্তিতে বিচার করা উচিত নয়। আমাদের উচিত তার কাজের মূল্যায়ন করা এবং তার প্রচেষ্টাকে সমর্থন করা। একটি সুস্থ ও সবুজ ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে আমাদের সবার একত্রিত হওয়া উচিত। সমাজের উন্নতির জন্য এমন উদ্যোগী ব্যক্তিদের প্রতি সম্মান এবং সমর্থন প্রদর্শন করা আমাদের সবার দায়িত্ব।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © comillardak.com