1. billalhossain@cumillardak.com : দৈনিক কুমিল্লার ডাক : দৈনিক কুমিল্লার ডাক
  2. : admin :
  3. Editor@gmail.com : Comillar Dak : Comillar Dak
  4. Noman@cumillardak.com : Noman :
ভালো কাজের পুরস্কার পেলেন ট্রাফিক ইন্সপেক্টর - দৈনিক কুমিল্লার ডাক
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন
Title :
“কুমিল্লার হোমনায় ব্যবসায়ী হত্যা : আদালতের ঐতিহাসিক রায়ে ৭ জনের মৃত্যুদ- ও ৭ জনের যাবজ্জীবন” চৌদ্দগ্রামে বিদেশ প্রত্যাগত অভিবাসীদের পুনঃএকত্রীকরণে সেমিনার চৌদ্দগ্রামে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক ও রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ঈদের আগে জাল টাকার ছড়াছড়ি : ক্রেতা-বিক্রেতারা আতঙ্কে চৌদ্দগ্রামে বজ্রপাতে মাটিকাটার শ্রমিক নিহত হারানো পরিবারের সন্ধানে মোহাম্মদ ইয়াসিন: এক দশক পরেও মা’কে খুঁজছেন চৌদ্দগ্রামে ৬০ কেজি গাঁজা সহ কাভার্ডভ্যান জব্দ দেবীদ্বারে কিশোরী ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেপ্তার দেবীদ্বার উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত “আনারসের জোয়ারে উত্তাল কুমিল্লা সদর দক্ষিণ : ইঞ্জিনিয়ার রিপনের বিজয়ের প্রত্যয়ে মুখরিত জনতা”

ভালো কাজের পুরস্কার পেলেন ট্রাফিক ইন্সপেক্টর

মোহাম্মদ জানে আলম :
  • Update Time : শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৩১১৭ Time View

কুমিল্লা মহানগরীর যানজট নিরসনে অভিনব পদক্ষেপ এবং নিরলস পরিশ্রমের জন্য ট্রাফিক ইন্সপেক্টর জিয়াউল চৌধুরী টিপু সম্মাননা ক্রেস্ট পেয়েছেন। তিনি এই সম্মাননা ক্রেস্ট তার টিমের সকল সদস্যদের উৎসর্গ করে দিয়ে বলেন, “এই পুরস্কার একান্ত আমার নয়, এটি ট্রাফিক বিভাগের সকল সদস্যদের রাত-দিনের কষ্টের ফসল।”

পবিত্র রমজানের মাসে যখন সকলে উপবাসে থাকে, তখন ট্রাফিকের প্রতিটি সদস্য পরিবার পরিজন ছেড়ে রাস্তায় দাড়িয়ে পানি খেয়ে রোজা ভেঙেছেন। অনেকে অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের এই ত্যাগ এবং পরিশ্রমের মাধ্যমে কুমিল্লা মহানগরী এবং জেলায় যানজট নিরসনে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করা হয়েছে।

এই সাফল্যের পেছনে রয়েছে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর টিপুর দক্ষ নেতৃত্ব এবং তার টিমের সদস্যদের অবিচল প্রচেষ্টা। তাদের এই কাজের জন্য জেলা পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান মহোদয় ভূয়সী প্রশংসা করেছেন এবং তাদের কাজের মূল্যায়ন করে আরও কাজের প্রতি স্পৃহা সৃষ্টি করেছেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এবং উপজেলা থেকে আগত ক্রেতারা এবারের নিরাপদ যাত্রা এবং যানজট নিরসনের কার্যক্রমের জন্য ট্রাফিক পুলিশের প্রশংসা করেছেন। তারা বলেন, “এবারের মতো নিরাপদ যাত্রা এবং যানজট নিরসনের কার্যক্রম চোখে পরার মতো ছিলো।” পবিত্র ঈদুল ফিতরের কেনাকাটা করতে এসে বিগত সময়ের চেয়ে এবছর নিরাপদ ও স্বস্তিদায়ক নগরীর প্রশংসা করেছেন ক্রেতারা।

এই ঘটনা থেকে বোঝা যায়, যে সঠিক নেতৃত্ব এবং দলগত প্রচেষ্টা যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে পারে। এমন এসপি থাকলে কুমিল্লার মানুষ নিরাপদে নির্বিঘ্নে বসবাস করতে পারবে এবং এই ধরনের প্রশংসনীয় কাজ অন্যান্য জেলার জন্যও অনুকরণীয় হতে পারে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © comillardak.com